Add more content here...
Dhaka ১১:৩৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
শিরোনামঃ
সিদ্ধিরগঞ্জ চৌধুরী বাড়ি আর,কে গ্রুপে বেতনের দাবিতে শ্রমিকদের আন্দোলন টাঙ্গাইল গোপালপুরে ২০১ গম্বুজ মসজিদ চত্বরে পুলিশ বক্স স্থাপন শহিদ বুদ্ধিজীবীর স্বীকৃতি পেলেন স্কুল শিক্ষক মহান শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস  ২০২৪ উপলক্ষে ভাষা শহিদের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি জ্ঞাপন করলেন নাটোর ১ আসনের অ্যাড: আবুল কালাম আজাদ এমপি মহোদয় টাঙ্গাইল মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস-২০২৪ উপলক্ষে আলোচনা সভা,সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত হয়েছে মহান শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ২০২৪ উপলক্ষে ভাষা শহিদের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি জ্ঞাপন করলেন নাটোর ১ আসনের অ্যাডভোকেট আবুল কালাম আজাদ এমপি মহোদয় রৌমারীতে মহান শহিদ আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত মাধবপুরে মুখ ঝলসে যাওয়া শিশুর আকুতি সিদ্ধিরগঞ্জে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে ছিদ্দীকিয়া ইসলামিয়া মাদরাসায় প্রতিযোগিতা ও অভিভাবক সম্মেলন বগুড়ার কাহালুতে দীর্ঘ ২১ বছর পর মা ফিরে পেল তার শারীরিক প্রতিবন্ধী রুস্তম কে
নোটিশঃ
প্রিয়" পাঠকগণ", "শুভাকাঙ্ক্ষী" ও প্রতিনিধিদের উদ্দেশ্যে জানানো যাচ্ছে:- কিছুদিন যাবত কিছু প্রতারক চক্র দৈনিক ক্রাইম তালাশ এর নাম ব্যবহার করে প্রতিনিধি নিয়োগ ও বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে। তার সাথে একটি সক্রিয় চক্র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভিন্ন গ্রুপ বিভিন্ন ভাবে "দৈনিক ক্রাইম তালাশ"কে হেয় প্রতিপন্ন করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। মনে রাখবেন "দৈনিক ক্রাইম তালাশ" এর অফিসিয়াল পেজ বা নিম্নের দুটি নাম্বার ব্যাতিত কোন রকম লেনদেনে জড়াবেন না। মোবাইল: 01867329107 হটলাইন: 01935355252

শুভ জন্ম দিন কবি হেলাল হাফিজ

  • Reporter Name
  • Update Time : ০৭:২৬:২০ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৮ অক্টোবর ২০২৩
  • ১৩২ Time View

নেএকোনা (কেন্দুয়া) উপজেলা প্রতিনিধি: দ্রোহ ও ভালোবাসার কবি হেলাল হাফিজের ৭৬তম জন্মদিন আজ শনিবার (৭অক্টোবর )। ১৯৪৮সালে এই দিনে নেএকোনার আটপাড়া উপজেলা বটতলী গ্রামে তিনি জন্ম গ্রহণ করেন।কবির শৈশব, কৈশোর ও যৌবন কেটেছে নিজ শহরেই। কবির বাবার নাম খোরশেদ আলী তালুকদার। মায়ের নাম কোকিলা বেগম। ১৯৬৫সালে নেএকোনা দও হাইস্কুল থেকে এসএসসি এবং ১৯৬৭সালে নেএকোনা কলেজ থেকে এইচএসসি এই বছরেই কবি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগে ভর্তি হন। কবি হেলাল হাফিজের লেখালেখির সূচনা ঘটে ষাটের দশকের উত্তাল সময়ে। ১৯৬৯সালে গনঅভ‍্যুল্থানের সময় রচিত ‘নিষিদ্ধ সম্পাদকীয় ‘ কবিতাটি তাকে কবিখ‍্যাতি এনে দেয়। ‘এখন যৌবন যার, মিছিলে যাবার তার শ্রেষ্ঠ সময় / এখন যৌবন যার, যুদ্ধে যাবার তার শ্রেষ্ঠ সময়’ কাল জয়ী কবিতার এ লাইন দুটি বাংলাদেশের স্বাধীনতা আন্দোলনের সঙ্গে অঙ্গাঅঙ্গী ভাবে জরিত। ১৯৮৬সালে প্রকাশিত হয় তার প্রথম কাব‍‍্যগ্রন্হ ‘ যে জলে আগুন জ্বলে ‘। ২৬বছর পর ২০১২সালে প্রকাশিত হয় তার দ্বিতীয় কাব‍্যগ্রন্হ ‘কবিতা একাত্তর ‘। হেলাল হাফিজ বাংলাদেশের একজন আধুনিক কবি যিনি স্বল্পপ্রজ হলে ও বিংশ শতাব্দীর শেষাংশে বিশেষ জনপ্রিয়তা অর্জন করেন। কবি প্রথম জীবনের সাংবাদিকতাকে পেশা হিসেবে বেছে নিয়েছিলেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রাবস্থায় ১৯৭২সালে তিনি তৎকালীন জাতীয় সংবাদপত্র দৈনিক পূর্বদেশে ‘ সাংবাদিকতায় যোগদান করেন। ১৯৭৫সালে পযর্ন্ত তিনি ছিলেন দৈনিক পূর্বদেশের সাহিত্য সম্পাদক। ১৯৭৬সালের শেষ দিকে তিনি দৈনিক ‘ দেশ’ পত্রিকা সাহিত্য সম্পাদক পদে যোগদান করেন। সর্বশেষ তিনি যুগান্তরে কর্মরত ছিলেন। কবিতায় অসামান্য অবদানের স্মারক হিসেবে হেলাল হাফিজকে ২০১৩সালে বাংলা একাডেমি পুরুষ্কার দেওয়া হয়। এ ছাড়া ও তিনি পেয়েছেন যশোর সাহিত্য পরিষদ পুরুষ্কার(১৯৮৬), আবুল মনছুর আহমদ সাহিত্য পুরুষ্কার (১৯৮৭), নেএকোনা সাহিত্য পরিষদের কবি খালেদদার চৌধুরী পুরুষ্কার ও সম্মাননা। অকৃতদার এই কবি বতর্মানে রাজধানীনে বসবাস করেন।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Popular Post

বাংলাদেশি it কোম্পানি

সিদ্ধিরগঞ্জ চৌধুরী বাড়ি আর,কে গ্রুপে বেতনের দাবিতে শ্রমিকদের আন্দোলন

শুভ জন্ম দিন কবি হেলাল হাফিজ

Update Time : ০৭:২৬:২০ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৮ অক্টোবর ২০২৩

নেএকোনা (কেন্দুয়া) উপজেলা প্রতিনিধি: দ্রোহ ও ভালোবাসার কবি হেলাল হাফিজের ৭৬তম জন্মদিন আজ শনিবার (৭অক্টোবর )। ১৯৪৮সালে এই দিনে নেএকোনার আটপাড়া উপজেলা বটতলী গ্রামে তিনি জন্ম গ্রহণ করেন।কবির শৈশব, কৈশোর ও যৌবন কেটেছে নিজ শহরেই। কবির বাবার নাম খোরশেদ আলী তালুকদার। মায়ের নাম কোকিলা বেগম। ১৯৬৫সালে নেএকোনা দও হাইস্কুল থেকে এসএসসি এবং ১৯৬৭সালে নেএকোনা কলেজ থেকে এইচএসসি এই বছরেই কবি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগে ভর্তি হন। কবি হেলাল হাফিজের লেখালেখির সূচনা ঘটে ষাটের দশকের উত্তাল সময়ে। ১৯৬৯সালে গনঅভ‍্যুল্থানের সময় রচিত ‘নিষিদ্ধ সম্পাদকীয় ‘ কবিতাটি তাকে কবিখ‍্যাতি এনে দেয়। ‘এখন যৌবন যার, মিছিলে যাবার তার শ্রেষ্ঠ সময় / এখন যৌবন যার, যুদ্ধে যাবার তার শ্রেষ্ঠ সময়’ কাল জয়ী কবিতার এ লাইন দুটি বাংলাদেশের স্বাধীনতা আন্দোলনের সঙ্গে অঙ্গাঅঙ্গী ভাবে জরিত। ১৯৮৬সালে প্রকাশিত হয় তার প্রথম কাব‍‍্যগ্রন্হ ‘ যে জলে আগুন জ্বলে ‘। ২৬বছর পর ২০১২সালে প্রকাশিত হয় তার দ্বিতীয় কাব‍্যগ্রন্হ ‘কবিতা একাত্তর ‘। হেলাল হাফিজ বাংলাদেশের একজন আধুনিক কবি যিনি স্বল্পপ্রজ হলে ও বিংশ শতাব্দীর শেষাংশে বিশেষ জনপ্রিয়তা অর্জন করেন। কবি প্রথম জীবনের সাংবাদিকতাকে পেশা হিসেবে বেছে নিয়েছিলেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রাবস্থায় ১৯৭২সালে তিনি তৎকালীন জাতীয় সংবাদপত্র দৈনিক পূর্বদেশে ‘ সাংবাদিকতায় যোগদান করেন। ১৯৭৫সালে পযর্ন্ত তিনি ছিলেন দৈনিক পূর্বদেশের সাহিত্য সম্পাদক। ১৯৭৬সালের শেষ দিকে তিনি দৈনিক ‘ দেশ’ পত্রিকা সাহিত্য সম্পাদক পদে যোগদান করেন। সর্বশেষ তিনি যুগান্তরে কর্মরত ছিলেন। কবিতায় অসামান্য অবদানের স্মারক হিসেবে হেলাল হাফিজকে ২০১৩সালে বাংলা একাডেমি পুরুষ্কার দেওয়া হয়। এ ছাড়া ও তিনি পেয়েছেন যশোর সাহিত্য পরিষদ পুরুষ্কার(১৯৮৬), আবুল মনছুর আহমদ সাহিত্য পুরুষ্কার (১৯৮৭), নেএকোনা সাহিত্য পরিষদের কবি খালেদদার চৌধুরী পুরুষ্কার ও সম্মাননা। অকৃতদার এই কবি বতর্মানে রাজধানীনে বসবাস করেন।