Add more content here...
Dhaka ০১:০৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ৯ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
শিরোনামঃ
বাড়তে পারে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি কেমন আছে রুবেল ! টাঙ্গাইলে পারিবারিক কলহের জেরে এক বিডিআর অবসর প্রাপ্ত পিতাকে পিটিয়ে আহত করেছে ছেলে আদিতমারী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ১১ জন প্রার্থীর মনোনয়ন পত্র দাখিল হিট স্ট্রোকের লক্ষণ এবং প্রতিরোধে করনীয় সৌদি আরবে সড়ক দুর্ঘটনায় এক বাংলাদেশী নিহত তীব্র তাপদাহে অতিষ্ঠ ভালুকার জনজীবন বগুড়ায় সদর থানা পুলিশ কর্তৃক হত্যা মামলার মৃত্যুদন্ডাদেশ প্রাপ্ত আসামী মামুন ঢাকা থেকে গ্রেফতার হবীগঞ্জের নবীগঞ্জ রুস্তমপুর টোলপ্লাজা এলাকায় থেকে ৩ কেজি গাঁজাসহ ২ মাদক ব্যবসায়ী পুলিশের হাতে গ্রেফতার আসন্ন উপজেলা নির্বাচন বর্জন করলো,নবীগঞ্জ উপজেলা বিএনপি
নোটিশঃ
প্রিয়" পাঠকগণ", "শুভাকাঙ্ক্ষী" ও প্রতিনিধিদের উদ্দেশ্যে জানানো যাচ্ছে:- কিছুদিন যাবত কিছু প্রতারক চক্র দৈনিক ক্রাইম তালাশ এর নাম ব্যবহার করে প্রতিনিধি নিয়োগ ও বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে। তার সাথে একটি সক্রিয় চক্র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভিন্ন গ্রুপ বিভিন্ন ভাবে "দৈনিক ক্রাইম তালাশ"কে হেয় প্রতিপন্ন করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। মনে রাখবেন "দৈনিক ক্রাইম তালাশ" এর অফিসিয়াল পেজ বা নিম্নের দুটি নাম্বার ব্যাতিত কোন রকম লেনদেনে জড়াবেন না। মোবাইল: 01867329107 হটলাইন: 01935355252

মণিরামপুরে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ১৪ প্রার্থী মার্চেই তফসিল ঘোষণা

  • Reporter Name
  • Update Time : ০৫:১৫:০৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২৪
  • ৫২ Time View

মোঃ জাকির হোসেন,মনিরামপুর (যশোর):মার্চে ঘোষণা হবে প্রথম ধাপের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা।
মণিরামপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন প্রত্যাশী বর্তমান উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য নাজমা খানম,সাবেক মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সচিব, নজরুল ইসলাম খানের ভাই কাবিল খান,
মণিরামপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আমজাদ হোসেন লাভলু, মণিরামপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক ফারুক হোসেন,মণিরামপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মিকাইল হোসেন। পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন প্রত্যাশী নারী পুরুষ মিলে ইতি মধ্যে ৯ জন প্রার্থীর নাম শোনা যাচ্ছে।উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক তরুণ আওয়ামী লীগ নেতা সন্দীপ ঘোষ, সাবেক ছাত্র নেতা শরিফুল ইসলাম, উওম চক্রবর্তী বাচ্চু, জার্মান আওয়ামী লীগের নেতা ইঞ্জিনিয়ার পিলাপ মল্লিক গোল্ডেন। এখনো পর্যন্ত এই চার পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান হিসাবে পরিচিত মুখ। পরবর্তীতে আসতে পারে কি না সংশয়। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হিসাবে এই পর্যন্ত আওয়ামী লীগের দলীয় ৫ প্রার্থীর নাম আলোচনায় উঠে এসেছে।

বর্তমান মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান কাজী জলি আক্তার,পৌর যুব মহিলা লীগের সভাপতি ডাঃ সুরাইয়া আক্তার(ডেইজি) গণজাগরণের নেত্রী বাসন্তী রাণী বিশ্বাস,সাবেক উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের নেত্রী আমেনা বেগম, উপজেলা যুব মহিলা লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মাজেদা খাতুন।
একঝাঁক মনোনয়ন প্রত্যাশী নারী পুরুষের মধ্যে কে পাবে দলীয় মনোনয়ন এমন হাজার প্রশ্নের মুখোমুখি উপজেলা পরিষদ নির্বাচন।
আগামী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে থাকছে না কোনো আওয়ামী লীগের দলীয় বাঁধা। মনোনয়ন যেই পান না কেনো, যে কেও নির্বাচন করতে পারেন এমনটি শুনা যাচ্ছে বর্তমানে।কিন্তু মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বারবার নেতা কর্মীদের উদ্দেশ্য বলছেন মনোনয়ন দিলেই যে সে পাশ হয়ে যাবে এমনটা নয়।জণগণের ভোটে নির্বাচিত হয়ে আসতে হবে।যার জনপ্রিয়তা বেশী সেই হবে উপজেলা পরিষদের প্রতিনিধি। সাধারণ মানুষের মাঝে ইতি মধ্যে বিভিন্ন জল্পনা কল্পনা দেখা দিচ্ছে।
কে হবে আগামীদিনের উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান।
সাধারণ মানুষের কাছে বিশেষ করে তিন জন প্রার্থীর নাম শুনা যাচ্ছে। নাজমা খানম জিনি মানবিক উপজেলা চেয়ারম্যান হিসাবে পরিচিত। মিকাইল হোসেন জিনি আওয়ামী লীগের দুর সময়ে রাজপথের লড়াকু সৈনিক হিসেবে পরিচিত। এবং তিনি একবার ভাইস চেয়ারম্যানের দ্বায়িত্ব পালন করেছেন।
আমজাদ হোসেন লাভলু তিনি আওয়ামী লীগের দুর সময়ে রাজপথে ছিলেন,গত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে তিনি মোটরসাইকেল প্রতিক স্বতন্ত্র নির্বাচন করেছিলেন। ততকালীন সময়ে তিনি নৌকার কাছে পরাজিত হয়।
কিন্তু রাজনৈতিক আলোচনায়,সাবেক প্রধানমন্ত্রীর সচিব নজরুল ইসলাম খানের,মেজ ভাই কাবিল খান, নাজমা খানম।
ভাইস চেয়ারম্যান হিসাবে
বর্তমান উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান উওম চক্রবর্তী বাচ্চু,প্রবাসী শরিফুল ইসলাম,সন্দীপ ঘোষ, ও ও জার্মান আওয়ামী লীগের নেতা ইঞ্জিনিয়ার পিলাপ মল্লিক গোল্ডেন এখনো পর্যন্ত এই চার প্রার্থী ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসাবে ঘোষণা দিয়েছন । সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান উওম চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে চাউল চুরি সহ বিভিন্ন অভিযোগ থাকায় সাধারণ ভোটারদের কাছে অপ্রিয় হয়ে উটেছেন বলে তৃণমূল পর্যায়ে নেতা কর্মী ক্ষোভ প্রকাশ করেছে।ইতি মধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় তোলপাড় ফেইজবুকে দেখা যাচ্ছে সাবেক শ্যামকুড় ইউনিয়ন ছাত্র লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা ছাত্র লীগের সদস্য প্রবাসী শরিফুল ইসলাম,ও সাবেক উপজেলা ছাত্র নেতা,বর্তমান উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সন্দীপ ঘোষ এর নাম। রাজনৈতিক নেতাদের থেকে পছন্দের প্রার্থী থেকেও জণগণের চাহিদার উপর বেশী গ্রহনযোগ্য দেওয়ার সিদ্ধান্ত আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনার।এদিকে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হিসাবে জনসাধারণের মাঝে ব্যাপক সাড়াফেলেছে পৌর যুব মহিলা লীগের সভাপতি ডাঃ সুরাইয়া আক্তার ডেইজি,জিনি এযাবতকালের সর্ববৃহৎ যুব-মহিলা লীগের কর্মী সমাবেশ করে মণিরামপুরে ইতিহাস করেছেন।এছাড়াও তিনি একজন নারী বিশেষজ্ঞ হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসক হিসাবেও বেশ পরিচিত।
ও গণজাগরণের প্রতিবাদী নারী বাসন্তী রাণী বিশ্বাস,জিনি অন্যায়ের বিরুদ্ধে কঠিন সময়ে প্রতিবাদ করেছেন যাহা দ্বিতীয় কোনো নারী করতে পারিনি।তার দোকান সহ ঘর বাড়ি পুড়িয়ে দিয়েছে একদল সন্ত্রাসী বাহিনী শুধু মাত্র বর্তমান সংসদ সদস্য এসএম ইয়াকুব আলীর পক্ষে নির্বাচনি পথ সভা, কর্মী সভা সহ ঈগল প্রতিকের নির্বাচন করা।

একটাই কারন ছিলো সংখ্যা লঘুদের পক্ষে তিনি সংগ্রাম করেছেন। এছাড়াও অভিশপ্ত ভবদাহ অঞ্চলের মানুষের জন্য বার বার ভবদাহ সংস্কারের দাবী জানিয়েছেন তিনি।সংবাদ সম্মেলন থেকে শুরু করে মানববন্ধন করেছেন অন্যয়ের বিরুদ্ধে, যে কারনে তিনি গণজাগরণের নেত্রী হিসাবে সৃকৃতি লাভ করেছেন।
সাবেক উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আমেনা বেগম জিনি ২০০৪ থেকে ২০০৯ পর্যন্ত উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি দ্বায়িত্ব পালন করেছে।দলের জন্য অনেক ত্যাগ রয়েছে তার।ততকালীন সময়ে ২০০৯ সালেই উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদে যোগ্য ছিলেন তিনি।ততকালীন সময়ে রাজপথের অগ্নি কন্যা হিসাবে পরিচিত লাভ করেন তিনি।উপজেলা যুব মহিলা লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মাজেদা খাতুন দীর্ঘ দিন যাবত আওয়ামী লীগ রাজনীতির সাথে জড়িত।তিনি সাবেক জেলা যুব মহিলা লীগের নেতৃত্ব দিয়েছেন,বর্তমানে মণিরামপুর উপজেলা যুব মহিলা লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হিসাবে দ্বায়িত্ব পালন করছেন।বর্তমান উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কাজী জলি আক্তার দীর্ঘ ৫ বছর যাবত দ্বায়িত্ব পালন করে আসছেন। এছাড়াও কয়েক বছর যাবত তিনি উপজেলা যুব মহিলা লীগের নেতৃত্ব দিয়েছেন।
আগামী উপজেলা পরিষদ নির্বাচন চলতি মাসে তফসিল ঘোষণা হওয়ার ঘোষণা দিলেও মার্চে তফসিল ঘোষণার সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন ও সরকার।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Popular Post

বাংলাদেশি it কোম্পানি

বাড়তে পারে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি

x

মণিরামপুরে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ১৪ প্রার্থী মার্চেই তফসিল ঘোষণা

Update Time : ০৫:১৫:০৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২৪

মোঃ জাকির হোসেন,মনিরামপুর (যশোর):মার্চে ঘোষণা হবে প্রথম ধাপের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা।
মণিরামপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন প্রত্যাশী বর্তমান উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য নাজমা খানম,সাবেক মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সচিব, নজরুল ইসলাম খানের ভাই কাবিল খান,
মণিরামপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আমজাদ হোসেন লাভলু, মণিরামপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক ফারুক হোসেন,মণিরামপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মিকাইল হোসেন। পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন প্রত্যাশী নারী পুরুষ মিলে ইতি মধ্যে ৯ জন প্রার্থীর নাম শোনা যাচ্ছে।উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক তরুণ আওয়ামী লীগ নেতা সন্দীপ ঘোষ, সাবেক ছাত্র নেতা শরিফুল ইসলাম, উওম চক্রবর্তী বাচ্চু, জার্মান আওয়ামী লীগের নেতা ইঞ্জিনিয়ার পিলাপ মল্লিক গোল্ডেন। এখনো পর্যন্ত এই চার পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান হিসাবে পরিচিত মুখ। পরবর্তীতে আসতে পারে কি না সংশয়। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হিসাবে এই পর্যন্ত আওয়ামী লীগের দলীয় ৫ প্রার্থীর নাম আলোচনায় উঠে এসেছে।

বর্তমান মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান কাজী জলি আক্তার,পৌর যুব মহিলা লীগের সভাপতি ডাঃ সুরাইয়া আক্তার(ডেইজি) গণজাগরণের নেত্রী বাসন্তী রাণী বিশ্বাস,সাবেক উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের নেত্রী আমেনা বেগম, উপজেলা যুব মহিলা লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মাজেদা খাতুন।
একঝাঁক মনোনয়ন প্রত্যাশী নারী পুরুষের মধ্যে কে পাবে দলীয় মনোনয়ন এমন হাজার প্রশ্নের মুখোমুখি উপজেলা পরিষদ নির্বাচন।
আগামী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে থাকছে না কোনো আওয়ামী লীগের দলীয় বাঁধা। মনোনয়ন যেই পান না কেনো, যে কেও নির্বাচন করতে পারেন এমনটি শুনা যাচ্ছে বর্তমানে।কিন্তু মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বারবার নেতা কর্মীদের উদ্দেশ্য বলছেন মনোনয়ন দিলেই যে সে পাশ হয়ে যাবে এমনটা নয়।জণগণের ভোটে নির্বাচিত হয়ে আসতে হবে।যার জনপ্রিয়তা বেশী সেই হবে উপজেলা পরিষদের প্রতিনিধি। সাধারণ মানুষের মাঝে ইতি মধ্যে বিভিন্ন জল্পনা কল্পনা দেখা দিচ্ছে।
কে হবে আগামীদিনের উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান।
সাধারণ মানুষের কাছে বিশেষ করে তিন জন প্রার্থীর নাম শুনা যাচ্ছে। নাজমা খানম জিনি মানবিক উপজেলা চেয়ারম্যান হিসাবে পরিচিত। মিকাইল হোসেন জিনি আওয়ামী লীগের দুর সময়ে রাজপথের লড়াকু সৈনিক হিসেবে পরিচিত। এবং তিনি একবার ভাইস চেয়ারম্যানের দ্বায়িত্ব পালন করেছেন।
আমজাদ হোসেন লাভলু তিনি আওয়ামী লীগের দুর সময়ে রাজপথে ছিলেন,গত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে তিনি মোটরসাইকেল প্রতিক স্বতন্ত্র নির্বাচন করেছিলেন। ততকালীন সময়ে তিনি নৌকার কাছে পরাজিত হয়।
কিন্তু রাজনৈতিক আলোচনায়,সাবেক প্রধানমন্ত্রীর সচিব নজরুল ইসলাম খানের,মেজ ভাই কাবিল খান, নাজমা খানম।
ভাইস চেয়ারম্যান হিসাবে
বর্তমান উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান উওম চক্রবর্তী বাচ্চু,প্রবাসী শরিফুল ইসলাম,সন্দীপ ঘোষ, ও ও জার্মান আওয়ামী লীগের নেতা ইঞ্জিনিয়ার পিলাপ মল্লিক গোল্ডেন এখনো পর্যন্ত এই চার প্রার্থী ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসাবে ঘোষণা দিয়েছন । সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান উওম চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে চাউল চুরি সহ বিভিন্ন অভিযোগ থাকায় সাধারণ ভোটারদের কাছে অপ্রিয় হয়ে উটেছেন বলে তৃণমূল পর্যায়ে নেতা কর্মী ক্ষোভ প্রকাশ করেছে।ইতি মধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় তোলপাড় ফেইজবুকে দেখা যাচ্ছে সাবেক শ্যামকুড় ইউনিয়ন ছাত্র লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা ছাত্র লীগের সদস্য প্রবাসী শরিফুল ইসলাম,ও সাবেক উপজেলা ছাত্র নেতা,বর্তমান উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সন্দীপ ঘোষ এর নাম। রাজনৈতিক নেতাদের থেকে পছন্দের প্রার্থী থেকেও জণগণের চাহিদার উপর বেশী গ্রহনযোগ্য দেওয়ার সিদ্ধান্ত আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনার।এদিকে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হিসাবে জনসাধারণের মাঝে ব্যাপক সাড়াফেলেছে পৌর যুব মহিলা লীগের সভাপতি ডাঃ সুরাইয়া আক্তার ডেইজি,জিনি এযাবতকালের সর্ববৃহৎ যুব-মহিলা লীগের কর্মী সমাবেশ করে মণিরামপুরে ইতিহাস করেছেন।এছাড়াও তিনি একজন নারী বিশেষজ্ঞ হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসক হিসাবেও বেশ পরিচিত।
ও গণজাগরণের প্রতিবাদী নারী বাসন্তী রাণী বিশ্বাস,জিনি অন্যায়ের বিরুদ্ধে কঠিন সময়ে প্রতিবাদ করেছেন যাহা দ্বিতীয় কোনো নারী করতে পারিনি।তার দোকান সহ ঘর বাড়ি পুড়িয়ে দিয়েছে একদল সন্ত্রাসী বাহিনী শুধু মাত্র বর্তমান সংসদ সদস্য এসএম ইয়াকুব আলীর পক্ষে নির্বাচনি পথ সভা, কর্মী সভা সহ ঈগল প্রতিকের নির্বাচন করা।

একটাই কারন ছিলো সংখ্যা লঘুদের পক্ষে তিনি সংগ্রাম করেছেন। এছাড়াও অভিশপ্ত ভবদাহ অঞ্চলের মানুষের জন্য বার বার ভবদাহ সংস্কারের দাবী জানিয়েছেন তিনি।সংবাদ সম্মেলন থেকে শুরু করে মানববন্ধন করেছেন অন্যয়ের বিরুদ্ধে, যে কারনে তিনি গণজাগরণের নেত্রী হিসাবে সৃকৃতি লাভ করেছেন।
সাবেক উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আমেনা বেগম জিনি ২০০৪ থেকে ২০০৯ পর্যন্ত উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি দ্বায়িত্ব পালন করেছে।দলের জন্য অনেক ত্যাগ রয়েছে তার।ততকালীন সময়ে ২০০৯ সালেই উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদে যোগ্য ছিলেন তিনি।ততকালীন সময়ে রাজপথের অগ্নি কন্যা হিসাবে পরিচিত লাভ করেন তিনি।উপজেলা যুব মহিলা লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মাজেদা খাতুন দীর্ঘ দিন যাবত আওয়ামী লীগ রাজনীতির সাথে জড়িত।তিনি সাবেক জেলা যুব মহিলা লীগের নেতৃত্ব দিয়েছেন,বর্তমানে মণিরামপুর উপজেলা যুব মহিলা লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হিসাবে দ্বায়িত্ব পালন করছেন।বর্তমান উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কাজী জলি আক্তার দীর্ঘ ৫ বছর যাবত দ্বায়িত্ব পালন করে আসছেন। এছাড়াও কয়েক বছর যাবত তিনি উপজেলা যুব মহিলা লীগের নেতৃত্ব দিয়েছেন।
আগামী উপজেলা পরিষদ নির্বাচন চলতি মাসে তফসিল ঘোষণা হওয়ার ঘোষণা দিলেও মার্চে তফসিল ঘোষণার সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন ও সরকার।