Add more content here...
Dhaka ০৪:০৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
নোটিশঃ
প্রিয়" পাঠকগণ", "শুভাকাঙ্ক্ষী" ও প্রতিনিধিদের উদ্দেশ্যে জানানো যাচ্ছে:- কিছুদিন যাবত কিছু প্রতারক চক্র দৈনিক ক্রাইম তালাশ এর নাম ব্যবহার করে প্রতিনিধি নিয়োগ ও বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে। তার সাথে একটি সক্রিয় চক্র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভিন্ন গ্রুপ বিভিন্ন ভাবে "দৈনিক ক্রাইম তালাশ"কে হেয় প্রতিপন্ন করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। মনে রাখবেন "দৈনিক ক্রাইম তালাশ" এর অফিসিয়াল পেজ বা নিম্নের দুটি নাম্বার ব্যাতিত কোন রকম লেনদেনে জড়াবেন না। মোবাইল: 01867329107 হটলাইন: 01935355252

বন্দরে সরকারি জায়গা দখল করে বহুতল ভবন নির্মাণ করছেন নাঃগঞ্জ জেলা পরিষদের মেম্বার মাসুম আহম্মেদ

  • Reporter Name
  • Update Time : ০৯:৫২:১৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ৮ অক্টোবর ২০২৩
  • ২০১ Time View

নারায়ণগঞ্জের বন্দরে সরকারি জায়গা দখল করে বহুতল ভবন নির্মাণ করছেন নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের ২ নং ওয়ার্ডের মেম্বার মাসুম আহমেদ।
সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বন্দর থানা দিন ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পাশে থাকা লাঙ্গলবন্দ বাসস্ট্যান্ডের পাশে লাঙ্গলবন্দ মৌজা ও জাঙ্গাল মৌজা অন্তর্গত চিরইপাড়া ( সরকারি কলোনি পাড়া ) ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন সাড়ে ১২ একর জায়গায় মধ্যে অবস্থিত।
স্থানীয় লোকমুখে শোনা যায়, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পাশে বর্তমান নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের ২ নং ওয়ার্ডের মেম্বার, ধামগড় ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মাসুম আহমেদ ২২ শতাংশ জমি ক্রয় করেন , যার মধ্যে তিনি ২৭ শতাংশ জায়গার ভোগদখলে আছেন, তারমধ্যে ৫ শতাংশ জায়গা তিনি কোন খারিজ মিটিশন করা নাই। তাছাড়া তার সাথে ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন সরকারি জায়গায় থাকায় তা জোরপূর্বক দখল করে বহুতল ভবন নির্মাণ করছেন।
এ বিষয়ে নাম প্রকাশ করতে অনিচ্ছুক এলাকাবাসী বলেন, তিনি আমাদের সাবেক চেয়ারম্যান, বর্তমান তিনি বন্দর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক, তার অনেক ক্ষমতা, আপনারা যদি আমাদের নাম প্রকাশ করেন, হয়তোবা সে আমাদের কোন ক্ষতি করতে পারে, কিন্তু আপনারা যে খবর নেন, কামতাল মালিভিটা সহ ব্রহ্মপুত্র নদীর পাড়ে রয়েছে তার অবৈধ ইটভাটা , সেই ইটভাটার মাটির জন্য এলাকার সাধারণ কৃষকের মাটি কেটে কেটে নিয়ে যায়, বাধা দিলে নামমাত্র কিছু টাকা পয়সা দিয়ি তাদেরকে চুপ করান, তাছাড়া কেউ যদি তাদের জমির ন্যায্য মূল্য দাবি করে,বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ঝামেলার শিকার হন তারা , আর আমাদের এই জায়গা তো (কলনির) সরকারি জায়গায় আমরা কি তার হাতে মাইর খাব ?।
এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা ত্রাণ ও পূর্ণবাসন কর্মকর্তা (D R R O) রেজাউল করিম সাংবাদিকদের জানান, এই জায়গাটি আমাদের ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের আন্ডারে, আমরা বিগত দিনে ওনার কাজ বন্ধ করে দিয়েছিলাম, তিনি পুনরায় আবার কাজ শুরু করেছেন আমরা শুনতে পেরেছি, আমি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বন্দরকে ব্যাপারটা জানিয়েছি তিনি বলেছেন আমরা ব্যবস্থা নিচ্ছি।
বন্দর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কুদরত এ খোদা জুয়েল, সাংবাদিকদের বলেন এই বিষয়টা আমি জানতে পেরেছি গত ৪ অক্টোবর আমি লোক পাঠিয়েছি এবং কাজ বন্ধ করে দিয়েছি। যতটুকু জানি এই জায়গাটি একটা সংস্থার কলোনী নামে পরিচিত।
মাসুম ক্রয়কিত জায়গায় জেলা পরিষদের একটি অস্থায়ী কার্যালয় করেন, তার সাথে একটি পাঁচ তলা ভবনে করেন, যার নিচ তলায় রয়েছে হোটেল তাজমহল নামে একটি রেস্টুরেন্ট। উপরের তলায় শোনা যাচ্ছে চেয়ারম্যান হাসপাতাল নাম একটি অত্যাধুনিক হাসপাতাল করবে বলে ব্যানার টানিয়েছেন তিনি।
এরই মধ্যে রাজধানী উন্নয়ন কর্পোরেশন (রাজউক ) নোটিশ দিয়েছেন যে তার ভবনটির কোন রকম বহুতল করার অনুমতি নেই।
এ বিষয়ে জেলা পরিষদের ২ নং ওয়ার্ড সদস্য মাসুম আহম্মের নিকট জানতে চাইলে তিনি মোঠোনে জানান এই জায়গা আমার ক্রয়কৃত, আমি কারো জায়গাজমি দখল করি নি। আমি আমার জায়গায় কাজ করছি। আর রাজুক একটি নোটিস পাঠিয়েছেন আমি দেখেছি, এই এলাকা তো রাজুকের আওয়াতাদিন নয়।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Popular Post

বাংলাদেশি it কোম্পানি

x

বন্দরে সরকারি জায়গা দখল করে বহুতল ভবন নির্মাণ করছেন নাঃগঞ্জ জেলা পরিষদের মেম্বার মাসুম আহম্মেদ

Update Time : ০৯:৫২:১৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ৮ অক্টোবর ২০২৩

নারায়ণগঞ্জের বন্দরে সরকারি জায়গা দখল করে বহুতল ভবন নির্মাণ করছেন নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের ২ নং ওয়ার্ডের মেম্বার মাসুম আহমেদ।
সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বন্দর থানা দিন ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পাশে থাকা লাঙ্গলবন্দ বাসস্ট্যান্ডের পাশে লাঙ্গলবন্দ মৌজা ও জাঙ্গাল মৌজা অন্তর্গত চিরইপাড়া ( সরকারি কলোনি পাড়া ) ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন সাড়ে ১২ একর জায়গায় মধ্যে অবস্থিত।
স্থানীয় লোকমুখে শোনা যায়, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পাশে বর্তমান নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের ২ নং ওয়ার্ডের মেম্বার, ধামগড় ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মাসুম আহমেদ ২২ শতাংশ জমি ক্রয় করেন , যার মধ্যে তিনি ২৭ শতাংশ জায়গার ভোগদখলে আছেন, তারমধ্যে ৫ শতাংশ জায়গা তিনি কোন খারিজ মিটিশন করা নাই। তাছাড়া তার সাথে ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন সরকারি জায়গায় থাকায় তা জোরপূর্বক দখল করে বহুতল ভবন নির্মাণ করছেন।
এ বিষয়ে নাম প্রকাশ করতে অনিচ্ছুক এলাকাবাসী বলেন, তিনি আমাদের সাবেক চেয়ারম্যান, বর্তমান তিনি বন্দর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক, তার অনেক ক্ষমতা, আপনারা যদি আমাদের নাম প্রকাশ করেন, হয়তোবা সে আমাদের কোন ক্ষতি করতে পারে, কিন্তু আপনারা যে খবর নেন, কামতাল মালিভিটা সহ ব্রহ্মপুত্র নদীর পাড়ে রয়েছে তার অবৈধ ইটভাটা , সেই ইটভাটার মাটির জন্য এলাকার সাধারণ কৃষকের মাটি কেটে কেটে নিয়ে যায়, বাধা দিলে নামমাত্র কিছু টাকা পয়সা দিয়ি তাদেরকে চুপ করান, তাছাড়া কেউ যদি তাদের জমির ন্যায্য মূল্য দাবি করে,বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ঝামেলার শিকার হন তারা , আর আমাদের এই জায়গা তো (কলনির) সরকারি জায়গায় আমরা কি তার হাতে মাইর খাব ?।
এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা ত্রাণ ও পূর্ণবাসন কর্মকর্তা (D R R O) রেজাউল করিম সাংবাদিকদের জানান, এই জায়গাটি আমাদের ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের আন্ডারে, আমরা বিগত দিনে ওনার কাজ বন্ধ করে দিয়েছিলাম, তিনি পুনরায় আবার কাজ শুরু করেছেন আমরা শুনতে পেরেছি, আমি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বন্দরকে ব্যাপারটা জানিয়েছি তিনি বলেছেন আমরা ব্যবস্থা নিচ্ছি।
বন্দর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কুদরত এ খোদা জুয়েল, সাংবাদিকদের বলেন এই বিষয়টা আমি জানতে পেরেছি গত ৪ অক্টোবর আমি লোক পাঠিয়েছি এবং কাজ বন্ধ করে দিয়েছি। যতটুকু জানি এই জায়গাটি একটা সংস্থার কলোনী নামে পরিচিত।
মাসুম ক্রয়কিত জায়গায় জেলা পরিষদের একটি অস্থায়ী কার্যালয় করেন, তার সাথে একটি পাঁচ তলা ভবনে করেন, যার নিচ তলায় রয়েছে হোটেল তাজমহল নামে একটি রেস্টুরেন্ট। উপরের তলায় শোনা যাচ্ছে চেয়ারম্যান হাসপাতাল নাম একটি অত্যাধুনিক হাসপাতাল করবে বলে ব্যানার টানিয়েছেন তিনি।
এরই মধ্যে রাজধানী উন্নয়ন কর্পোরেশন (রাজউক ) নোটিশ দিয়েছেন যে তার ভবনটির কোন রকম বহুতল করার অনুমতি নেই।
এ বিষয়ে জেলা পরিষদের ২ নং ওয়ার্ড সদস্য মাসুম আহম্মের নিকট জানতে চাইলে তিনি মোঠোনে জানান এই জায়গা আমার ক্রয়কৃত, আমি কারো জায়গাজমি দখল করি নি। আমি আমার জায়গায় কাজ করছি। আর রাজুক একটি নোটিস পাঠিয়েছেন আমি দেখেছি, এই এলাকা তো রাজুকের আওয়াতাদিন নয়।